কুমিল্লায় করোনা টেস্ট শুরু আজ, চাঁদপুরে……

চাঁদপুরের করোনা টেস্ট হবে কুমিল্লা অথবা নোয়াখালীতে

রহিম বাদশা :
চাঁদপুর জেলা থেকে সংগৃহীত করোনার নমুনা (সেম্পল) আর ঢাকায় নিয়ে টেস্ট করতে হবে না। কুমিল্লা অথবা নোয়াখালীতে হবে চাঁদপুরে সংগৃহীত নমুনার টেস্ট। একযোগে উভয় জেলায়ও চাঁদপুরের নমুনার টেস্ট হতে পারে। নিকটবর্তী এসব জেলায় চাঁদপুরের নমুনা টেস্ট শুরু হলে স্বল্পতম সময়ে করোনার রিপোর্ট পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে স্থাপন করা রিয়েল টাইম পিসিআর মেশিন এখন পুরোপুরি প্রস্তুত করোনা টেস্টের জন্য। রোববার ১৮জন স্বাস্থ্যকর্মীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া সম্পন্ন হয়েছে। এদের মধ্যে ৭জন টেকনোলজিস্ট ও ১১জন চিকিৎসক। পিসিআর মেশিনটি পরিচালনার জন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের মেশিন পরিচালনা করাসহ করোনা টেস্টের যাবতীয় বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মোস্তফা কামাল আজাদ জানান, সোমবার (২৭ এপ্রিল) দুপুরে কুমিল্লার পিসিআর ল্যাব উদ্বোধন করা হবে। তিনি জানান, কুমিল্লা, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ফেনী, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী জেলার করোনা টেস্ট এই ল্যাবে হওয়ার কথা রয়েছে।

কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. কান্তি প্রিয় দাশ জানান, করোনা পরীক্ষার জন্য আমাদের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। দু’দিন ডেমো পরীক্ষা করা হবে। নমুনা সংগ্রহ হলে ২৮ এপ্রিল মঙ্গলবার থেকে পুরোদমে পরীক্ষা করতে পারবো আমরা।

এদিকে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) আরটি-পিসিআর মেশিন ব্যবহার করার অনুমোদন পেয়েছে নোয়াখালীর আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ। সম্প্রতি আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত/সন্দেহভাজন রোগীর নমুনা পরীক্ষার এ অনুমোদন দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। অচিরেই এখানে টেস্ট শুরুর কথা রয়েেেছ। আশা করা হচ্ছে, এখানে করোনা টেস্ট চালু হলে এই অঞ্চলের করোনা ভাইরাস পরীক্ষার পরিমাণ অনেক বৃদ্ধি পাবে এবং খুব দ্রুত ফলাফল পাওয়া যাবে।

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসটিই বিভাগের লেকচারার সালাউদ্দিন পাঠান জানান, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী ও ফেনী অঞ্চলের করোনাভাইরাস পরীক্ষা করার জন্য নোয়াখালীর আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজকে অনুমোদন প্রদান করা হয়েছে। এতে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি ও মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের ২টি আরটি-পিসিআর মেশিনের সহায়তা নিয়ে এই কার্যক্রম শুরু করা হবে।

অন্যদিকে চাঁদপুর জেলা সদর হাসপাতালে করোনা টেস্টের জন্য পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবি উঠেছে জেলাবাসীর পক্ষ থেকে। তবে আপাতত সেই সম্ভাবনা নেই বলে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। তারা জানান, অতি মূল্যবান মেশিন জেলা পর্যায়ে বরাদ্দ প্রদান যেমন সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্তের ব্যাপার তেমনি এখানে ওই মেশিন পরিচালনার লোকবলও নেই। তাই আপাতত চাঁদপুরে করোনা টেস্টের ল্যাব স্থাপনের কোনো সম্ভাবনা নেই।

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আরএমও ও করোনা বিষয়ক ফোকালপার্সন ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল বলেন, খুব সহসা নোয়াখালীতে চাঁদপুরে সংগৃহীত নমুনা টেস্ট শুরু হতে যাচ্ছে। কুমিল্লাও হতে পারে। তবে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে এ ধরনের ল্যাব স্থাপন তথা টেস্ট করার কোনো সম্ভাবনা নেই।

চাঁদপুরের সিভিল সার্জন ডা. মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ রোববার রাতে চাঁদপুর প্রবাহকে জানান, আমরা শুরু থেকে এখন (রোববার) পর্যন্ত ঢাকা শিশু হাসপাতালে নমুনা পাঠাচ্ছি করোনা টেস্টের জন্য। রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে একটি চিঠি দিয়ে আমাদের জানানো হয়েছে, চাঁদপুরে সংগৃহীত নমুনা নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে টেস্ট করা হবে। এখন আমরা নোয়াখালীর ল্যাবটি চালুর অপেক্ষায় আছি। তাছাড়া কুমিল্লার ল্যাবও সোমবার (২৭ এপ্রিল) চালু হবে বলে শুনেছি। নির্দেশনা এলে কুমিল্লায়ও নমুনা পাঠানোর জন্য আমরা প্রস্তুত আছি।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, চাঁদপুর জেলা পর্যায়ে করোনা টেস্টের জন্য পিসিআর ল্যাব স্থাপনের কোনো সম্ভাবনাই আপাতত নেই। ওই ধরণের ল্যাব স্থাপনের সুযোগ-সুবিধাও আমাদের এখানে বিদ্যমান নেই। তাই এখন পর্যন্ত এ নিয়ে আমাদের কোনো চিন্তা-ভাবনা নেই।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন