চাঁদপুরে করোনায় আক্রান্ত প্রথম রোগী করোনামুক্ত

শনিবার পাওয়া একমাত্র রিপোর্ট করোনা নেগেটিভ, আরো ১৯জনের নমুনা সংগ্রহ

আবদুস সালাম আজাদ জুুয়েল/খান মোঃ কামাল :
চাঁদপুর জেলায় প্রথম সনাক্ত হওয়া করোনায় আক্রান্ত রোগী সুজন (৩২) করোনামুক্ত হয়েছেন। ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়ে আবারো মতলব উত্তরের শ্বশুর বাড়িতে এসেছেন তিনি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চাঁদপুরের সিভিল সার্জন ডা. মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ এবং মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুশরাত জাহান মিথেন।

সুজনের পৈত্রিক বাড়ি রংপুরে। তিনি নারায়ণগঞ্জে গার্মেন্টেসে চাকুরি করতেন। সেখানে থাকা অবস্থায় তিনি জ্বরে আক্রান্ত হন। গত ৫ এপ্রিল জ্বর নিয়ে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় তার শ্বশুর বাড়িতে চলে আসেন তিনি। সন্দেহভাজন রোগী হিসেবে ৬ এপ্রিল তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

৯ এপ্রিল রাতে তার করোনা টেস্টের রিপোর্ট পজেটিভ বলে জানা যায়। ওইদিনই তাকে মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এরপর ১২ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত আরো ২জনসহ তাকে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

শুক্রবার তার করোনা টেস্টের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। অর্থাৎ তিনি করোনামুক্ত হয়েছেন। ওইদিন সন্ধ্যায় তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। শনিবার তিনি আবার মতলব উত্তর উপজেলায় অবস্থিত তার শ্বশুর বাড়িতে চলে আসেন।

মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. নুশরাত হাহান মিথেন জানান, প্রথম করোনার রোগী সুজন সুস্থ হয়ে বাড়ি এসেছেন। তিনি এখন তার শ্বশুর বাড়িতে এটা জানতে পেরেছি। সে এখন সুস্থ রয়েছেন।

চাঁদপুরের সিভিল সার্জন ডা. মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহও শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরো জানান, শনিবার চাঁদপুরে সংগৃহীত নমুনার মাত্র একটি রিপোর্ট এসেছে, সেটি করোনা নেগেটিভ। এ দিন আরো ১৯জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

চাঁদপুর সিভিল সার্জন অফিসের হিসেব মতে, এ পর্যন্ত জেলায় সনাক্তকৃত রোগীর সংখ্যা ১০জন। এর মধ্যে ১জন মৃত ও ১জন করোনামুক্ত হয়েছেন। বর্তমানে রোগীর সংখ্যা ৮জন।

এর বাইরে মতলব উত্তরের আরো ২জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় চিকিৎসাধীন আছেন। তারা ঢাকায় নমুনা প্রদান করায় তাদের তথ্য চাঁদপুর সিভিল সার্জন অফিসে তালিকাভুক্ত নেই।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন