দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রবাসী সোহেল বন্ধুর হাতে খুন

দেলোয়ার হোসেন বেলাল :
দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওনা টাকা দাবি করায় ফরিদগঞ্জের ইব্রাহিম খলিল সোহেলকে কুপিয়ে হত্যা করলো একই উপজেলার সন্তোষপুর গ্রামের ছাত্তার মিঝির ছেলে রুবেল হোসেন নামে আরেক প্রবাসী। তারা একে অপরের বন্ধু ছিল। বৃহস্পতিবার রাতে দক্ষিণ আফ্রিকায় আফ্রিনটন শহরে এ ঘটনা ঘটে। রুবেল তার স্ত্রী সন্তান নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আফ্রিকায় বসবাস করেন।

নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে ৮ বছর পূর্বে দক্ষিণ অফ্রিকায় পাড়ি জমায় ফরিদগঞ্জ পৌর এলাকার প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী মো. গোলাপ সর্দারের ছোট ছেলে সোহেল (২৫)। বিদেশে যাওয়ার পর থেকে সোহেলের ওই দেশে বৈধভাবে থাকার কাগজপত্র ছিল না। এক পর্যায়ে দোকান ক্রয়ের জন্য বিদেশে নিজের অর্জিত টাকা সে দেশে থাকা (পাশ^বর্তী সন্তোষপুর গ্রামের) রুবেলের কাছে জমা দেয়।

বৃহস্পতিবার রাতে দোকান ক্রয়ের জন্য রুবেলের কাছে পাওনা টাকা দাবি করায় কথা কাটাটির এক পর্যায়ে রুবেল ক্ষিপ্ত হয়ে সোহেলকে ধারালো ছোরা দিয়ে এলোপাথারি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। ডাকচিৎকার শুনে স্থানীয় বাংলাদেশীরা সোহেলকে ওই দেশের পুলিশের সহযোগিতায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত ডাক্তার সোহেলকে মৃত ঘোষণা করেন। এই মৃত্যুর সংবাদ তার গ্রামের বাড়ি ফরিদগঞ্জে আসার পর নিহতের পরিবারে শোকের মাতম বইছে।

নিহত সোহেল হত্যার বিচার দাবি করে তার পরিবারের সদস্যরা এ উপজেলারই সন্তোষপুর গ্রামের র”বেলকে দায়ী করে বলেন, বাংলাদেশের সরকারের মাধ্যমে রুবেলকে আইনের আওতায় এনে সোহেল হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করছি।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন