ফোনালাপে সম্পর্কের সূত্র ধরে কিশোরী ধর্ষিত, ধর্ষক আটক

সুজন পোদ্দার :
কচুয়ায় ফোনালাপে সম্পর্ক করে ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় সোমবার রাতে ধর্ষক ও তার সহযোগীকে আসামী করে ধর্ষিতা বাদী হয়ে কচুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার উপজেলার কড়ইয়া ইউনিয়নের বাসাবাড়িয়া গ্রামে।

মামলার এজাহারে বাদী (ধর্ষিতা) অভিযোগ করেন, ধর্ষিতা কিশোরীর (১৮) সাথে নলুয়া গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে রাসেল মিয়ার (২৫) প্রায় ২ মাস আগ থেকে ফোনালাপে সম্পর্ক গড়ে উঠে। ফোনালাপের মাধ্যমে রাসেল আমাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। গত ১৯ এপ্রিল সন্ধ্যা ৭টায় রাসেল আমাকে ফোন করে ঘর থেকে বের হয়ে ফোন দিতে বলে। আমি সরল বিশ্বাসে তার কথায় ঘর থেকে বের হলে রাসেল ও তার সাথে থাকা এক ব্যক্তি আমাকে জোরপূর্বক ছুরি দিয়ে ভয় দেখিয়ে মুখ চাপা দিয়ে বাড়ির পাশে ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করে। রাসেল ও তার সহযোগী পালিয়ে গেলে আমি ডাক-চিৎকার শুরু করলে আমার বাবা-মা, ভাই ঘটনাস্থলে গিয়ে আমাকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে ঘরে নিয়ে আসে। তারা আমাকে জিজ্ঞাসা করলে আমি তাদের উপরোক্ত ঘটনা প্রকাশ করি।

এ ঘটনায় ধর্ষিতা নিজে বাদী হয়ে কচুয়া থানায় ধর্ষক ও তার সহযোগী অজ্ঞাতনামার বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের করলে কচুয়া থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযুক্ত ধর্ষক রাসেল মিয়াকে গ্রেফতার করে।

কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ওয়ালী উল্লাহ (অলি) জানান, অভিযুক্ত ধর্ষক রাসেলকে আটক করা হয়েছে। তার সহযোগীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ধর্ষক রাসেলকে মঙ্গলবার সকালে চাঁদপুর আদালতে এবং ধর্ষিতাকে মেডিকেল টেস্টের জন্য চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে কচুয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার নং ৯, তাং ২০/০৪/২০২০ খ্রি.।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন