চাঁদপুরে করোনার উপসর্গে একদিনে ৬জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরে করোনার উপসর্গে বুধবার ৬জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে মতলব উত্তর উপজেলায় হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা, কচুয়ায় একটি ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধি, মতলব দক্ষিণ উপজেলায় একই বাড়ির ২জন এবং হাজীগঞ্জের ২জন রয়েছেন।

করোনার উপসর্গ নিয়ে বুধবার হাজীগঞ্জ উপজেলার ৬নং বড়কূল পূর্ব ইউনিয়নের সেন্দ্রা গ্রামের শামসুন্নাহার (২৭) ও পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডে বিলকিছ বেগম (৫৫) মারা গেছেন। বিকেলে তারা মারা যান।

বাদ মাগরিব ও বাদ এশা যথাক্রমে তাদের নামাজে জানাযা ও দাফন সম্পন্ন হয়। তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ও বিশেষ ব্যবস্থায় দাফন করা হয়েছে।

এদিকে মতলব দক্ষিণ উপজেলার উপাদী উত্তর ইউনিয়নের দক্ষিণ ডিঙ্গাভাঙ্গা গ্রামের মো. মিজান বকাউল (৫৫) করোনা উপসর্গ নিয়ে বুধবার সকাল ৭টায় মারা যান।

একই বাড়ির বাচ্চু বকাউলের স্ত্রী মনি বেগম (৫০) বুধবার রাত আড়াইটায় উপসর্গে মৃত্যু হয়। বুধবার দুপুরে উভয়কে স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রশাসনের উপস্থিতিতে ভলান্টিয়ার টিমের সহায়তায় পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এদিকে কচুয়ায় করোনার উপসর্গ নিয়ে আব্দুল হাকিম (৪০) নামের এক ব্যক্তি বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মারা গেছেন। তিনি ‘ইউনি-মেড ইউনি-হেলথ’ কোম্পানীর রিপ্রেজেন্টেটিভ ছিলেন।

আব্দুল হাকিম বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার অধিবাসী। তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পাশে ইদ্রিস বকাউলের বাসা ভাড়া নিয়ে তার স্ত্রীসহ বসবাস করতেন। বর্তমানে তার স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা।

এছাড়া করোনার উপসর্গ (জ্বর, শ্বাসকষ্ট) নিয়ে বুধবার ভোরে ঢাকা নেওয়ার পথে মারা গেছেন মতলব দক্ষিণ ও মতলব উত্তর উপজেলার হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আব্দুল বারেক (৫৬)।

এর তিন দিন আগে মতলব দক্ষিণ উপজেলা হিসাবরক্ষকের কার্যালয়ের একজন কর্মচারী করোনার উপসর্গে মারা যান।

১৭ জুন আব্দুল বারেক করোনা টেস্টের জন্য নমুনা দেন। রিপোর্ট এখনো অপেক্ষমান। তাই তাকে বিশেষ ব্যবস্থায় দাফন করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন