চাঁদপুরে জনশক্তি কর্মসংস্থান অফিসে বিদেশগামী করোনা টিকা গ্রহীতাদের ভোগান্তি

শরীফুল ইসলাম :
বিদেশগামী কর্মীদের অগ্রাধিকার প্রাপ্তি ও বয়স প্রমার্জন করে টিকার জন্য সুরক্ষা অ্যাপে (চালু হওয়া সাপেক্ষে) রেজিস্ট্রেশনের জন্য চাঁদপুর জনশক্তি কর্মসংস্থান অফিসে টিকা গ্রহীতারা ভিড় জমিয়েছেন। তবে অনলাইন রেজিস্ট্রেশন সার্ভার ও বিকাশে টাকা দিতে না পারায় দুর্ভোগে পড়েছেন শত শত বিদেশগামী টিকা গ্রহীতা।

শুক্রবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চাঁদপুর জনশক্তি কর্মসংস্থান কার্যালয়ের সামনে শত শত প্রবাসী করোনা ভ্যাকসিন (টিকা) নেওয়ার জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করতে দেখা যায়। অনেকে টিকা রেজিস্ট্রেশন ও বিকাশে টাকা জমা না দিতে পেরে হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

কচুয়া উপজেলা থেকে আসা রবিউল বলেন, সকাল ৯টার সময় জনশক্তি অফিসে এসেছি। লকডাউনের মধ্যে অনেক কষ্ট করে এখানে আসতে হয়েছে। এসেও যদি কাজ হত, তাহলে মনকে বুজাতে পারতাম। সকাল থেকে সার্ভার ও বিকাশে ২০০ টাকা ঢুকছে না। আর কতক্ষণ অপেক্ষা করবো, কয়েকবার চেষ্টা করেও কাজ হচ্ছে না।

হাজীগঞ্জের বলাখাল থেকে আসা নুর হোসেন বলেন, আমার সাথে আসা দুই জন চলে গেছে। আমিও ভাবছি চলে যাবো। প্রবাসীদের সবকাজে সব সময় হয়রানি থেকেই যায়। এই লকডাউনের মধ্যে দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ এখানে এসেছে টিকার রেজিস্ট্রেশন করতে। কিন্তু অনলাইন সমস্যার কারণে কোন কাজই হচ্ছে না।

জেলা জনশক্তি জরিপ কর্মকর্তা মো. মোহছেন পাটওয়ারী বলেন, সরকার প্রবাসী কর্মীদের কর্মস্থলে গমন নিরাপদ ও ঝুঁকিমুক্ত করতে বিদেশগামী কর্মীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রদান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিএমইটির স্মার্ট কার্ড আছে সেসব কর্মীর টিকার জন্য সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধনের সুবিধার্থে বৈধ পাসপোর্ট দিয়ে ২ জুলাই থেকে বিএমইটির ডাটাবেজে নিবন্ধন করতে হবে। তারা যদি এই ভ্যাকসিন না দিয়ে বিদেশে গমন করে, তাহলে তাদের ৭০-৮০ হাজার টাকা খরচ হবে। প্রবাসীদের সুবিধার্থে রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়েছে। সকাল থেকে সারাদেশে সার্ভার সমস্যা রয়েছে। বিকাশে রেজিস্ট্রেশনের ২০০ টাকা যাচ্ছে না। সময়ের ব্যাপার, কখন ঠিক হবে বলা যাচ্ছে না।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।