চাঁদপুরে পৌনে ১১ কেজি গাঁজাসহ ৪ মাদকব্যবসায়ীকে আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরে পৃথক অভিযানে ৪ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। এর মধ্যে পৌনে ৬ কেজি গাঁজাসহ ৩জনকে এবং ৫ কেজিসহ ১জনকে আটক করা হয়েছে।

কচুয়া থেকে সুজন পোদ্দার জানান, কচুয়ায় গাজী মহসিন (৩৮), মিজানুর রহমান (৪০) ও জহিরুল ইসলাম (৪২) নামের ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে এসআই মামুন সরকার ও জাহাঙ্গীর সরকারসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে উপজেলার বাতাপুকুরিয়া ও তেতৈয়া এলাকায় পৃথক পৃথকভাবে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত গাজী মহসিন ও মিজানুর রহমান রাগদৈল গ্রামের ও জহিরুল ইসলাম তেতৈয়া গ্রামের বাসিন্দা।

কচুয়ার ওসি মো. মহিউদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার বাতাপুকুরিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী গাজী মহসিন ও মিজানুর রহমানকে ৫ কেজি গাঁজা ও মাদক কারবারে ব্যবহৃত সিএনজিসহ তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। একই দিন রাতে তেতৈয়া মধ্যপাড়া মোল্লা বাড়িতে অভিযান চালিয়ে জহিরুল ইসলামকে ৭৫০ গ্রাম গাঁজাসহ গ্রেফতার করা হয়। পরদিন শুক্রবার তাদেরকে কোর্টে সোপর্দ করার মধ্য দিয়ে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মতলব উত্তর থেকে নিজস্ব প্রতিনিধি জানান, মতলব উত্তর উপজেলায় উদমদী এলাকা থেকে ৫ কেজি গাঁজাসহ মো. মহসিন হোসাইন দাই (২০) নামে মাদকব্যবসায়ী গ্রেফতার হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মতলব উত্তর থানা পুলিশ উপজেলার উদমদী এলাকার জাফর বেপারী বাড়ির ইব্রাহীম বেপারীর দোচালা টিনের বসতঘরের ভিতর তল্লাশি করে তাকে গ্রেফতার করেন। মহসিন উপজেলার ফরাজী কান্দি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড উত্তর হাজীপুর এলাকার মো. বাবুল দাই এর ছেলে।

মতলব উত্তর থানা পুলিশ জানায়, ওসির নির্দেশে থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ লোকমান হোসেন সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সসহ থানার খাস উদমদী এলাকার জাফর বেপারী বাড়ির ইব্রাহীম বেপারীর দোচালা টিনের বসতঘরের ভিতর তল্লাশী করে মহসিনকে গ্রেফতার করেন এবং তার হেফাজতে থাকা দুই কেজি এবং একই ইউনিয়নের উদমদী এলাকার পলাতাক আসামী মো. জাফর বেপারীর ছেলে মো. ইব্রাহীম বেপারী (২২) এর দখলীয় ৩ কেজিসহ ৫ কেজি গাঁজা উদ্ধার করেন।

মতলব উত্তর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল জানান, জব্দকৃত গাঁজার আনুমানিক মূল্য ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা। আসামীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।