চাঁদপুরে র‌্যাবের অভিযানে ২ লাখ মিটার কারেন্ট জাল ও নৌকা জব্দ

তালহা জুবায়ের :
চাঁদপুরে মা ইলিশ সংরক্ষণে প্রথম বারের মতো অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব। মঙ্গলবার বিকেলে চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনা নদীতে যৌথ অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব-১১। অভিযানে বিপুল পরিমান নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও বেশ কয়েকটি মাছ ধরার নৌকা জব্দ করা হয়। তবে কোনো জেলেকে আটক করা যায়নি।

মঙ্গলবার বিকেল থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত র‌্যাব-১১ সিপিসি-২ এর কোম্পানী কমান্ডার মেজর নাজমুস সাকিব নেতৃত্ব দেন। এতে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উজ্জল হোসাইন, মৎস্য কর্মকর্তা শামছুল আলম পাটোয়ারীসহ কোস্টগার্ড ও নৌ-পুলিশের সদস্যরা অংশ নেন।

এ সময় অভিযানকারী শতাধিক সদস্যের এই দলটি বেশ কয়েকটি স্পিডবোট ও ট্রলার নিয়ে অভিযানে অংশ নেয়। বড়স্টেশন মোলহেড থেকে শুরু করে পুরানবাজার, বহরিয়া, হরিণা ফেরিঘাটসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় প্রায় ২ লাখ মিটার কারেন্ট জাল ও বেশ কয়েকটি মাছ ধরার নৌকা জব্দ করা হয়।

র‌্যাবের মেজর নাজমুস সাকিব জানান, মা ইলিশ সংরক্ষণে সরকারের সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা করতে র‌্যাবও এই অভিযানে যোগ দিয়েছে। বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেঘনা নদীর বিভিন্ন স্থানে এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় মা ইলিশ ধরার জন্য নদীর পাড়ে অপেক্ষায় থাকা নৌকা থেকে প্রায় ৭০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়েছে। এ সময় বেশ কয়েকটি নৌকা জব্দ করে নদীতে ডুবিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত রোববার চাঁদপুরে নৌ-পুলিশের ওপর জেলেরা হামলা চালালে নৌ-পুলিশর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফরিদা পারভিনসহ অন্তত পক্ষে ১৩ সদস্য আহত হয়েছে। সেই ঘটনার পর আজ বিকেল থেকে মা ইলিশ সংরক্ষণে এই যৌথ অভিযান শুরু হয়েছে।

চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনায় গত ১৪ অক্টোবর থেকে আগামী ৪ নভেম্বর পর্যন্ত মা ইলিশ সংরক্ষণ কর্মসূচি চলছে। এর আওতায় মতলবের ষাটনল থেকে হাইমচরের চরভৈরবী পর্যন্ত ৭০ কিলোমিটার এলাকা ইলিশের অভয়াশ্রম ঘোষণা করা হয়েছে। তাছাড়া চাঁদপুরসহ ইলিশ বিচরণ করে উপক‚লের এমন ১৯টি জেলার নদনদীতে সবধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার। একই সঙ্গে বিক্রয়, পরিবহন ও মজুদ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।