ফরিদগঞ্জে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ৭ যুবক আটক : পুলিশ বলছে ভিন্ন কথা

নিজস্ব প্রতিনিধি :
ফরিদগঞ্জ উপজেলায় ধারালো অস্ত্র নিয়ে ৭ যুবককে আটক করেছে এলাকাবাসী ও পুলিশ। এ নিয়ে স্থানীয়রা বলছে, আটককৃত যুবকরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে ডাকাতির প্রস্তুতি করছিল।

তবে পুলিশ দাবি করছে, এলাকায় একটি খেলাকে কেন্দ্র করে দু’দল যুবকের দ্বন্দ্বের কারণে ওই যুবকরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে একত্রিত হওয়ার সংবাদ পেয়ে পুলিশ তাদেরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এলাকাবাসী জানায়, ওই এলাকায় খেলা নিয়ে কোন ধরনের মারামারির ঘটনা ঘটেনি। শুক্রবার রাত ১০টায় উপজেলার রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের গৃদকালিন্দিয়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে।

আটককৃত যুবকরা হলো- আহসান হাবিব (১৮), ফজলে রাব্বী (১৫), মোশারফ হোসেন (১৮), রাকিব হোসেন (১৮), জিসান পাটওয়ারী আপন (১৮), হৃদয় পাটওয়ারী (১৮), ছাদেক হোসেন রুমী (১৮)। তাদের প্রত্যেকের বাড়ি রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের কাউনিয়া ও মান্দারখীল গ্রামে।

এলাকাবাসী জানায়, শুক্রবার রাতে ফরিদগঞ্জ-রায়পুর সড়কের পাশে কুড়ালী মসজিদ সংলগ্ন স্থানে একদল যুবক অত্যাধুনিক ধারালো অস্ত্র নিয়ে জড়ো হয়। এ অবস্থা দেখে স্থানীয়রা তাদের আটক করে গৃদকালিন্দিয়া পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দেয়। এ খবর পেয়ে ওই ফাঁড়ির মোঃ আরিফের নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স ওই যুবকদের ধারালো অস্ত্রসহ আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে গৃদকালিন্দিয়া ফাঁড়ির পুলিশ সদস্য মোঃ আরিফ জানান, শুক্রবার রাত ১০টার দিকে গৃদকালিন্দিয়া বাজারের পাশ্ববর্তী কুড়ালি মসজিদ এলাকায় দেশীয় অস্ত্রসহ ৭জনকে যুবককে এলাকাবাসী আটক করে আমাদের খবর দেয়, আমরা অস্ত্রধারীদের উদ্ধার করে ওসি স্যারকে খবর দিলে তিনি থানা থেকে পুলিশ পাঠিয়ে অস্ত্রধারী ৭ যুবককে থানায় নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়াম্যান ইসকান্দার আলী জানায়, এই এলাকাতে প্রায়ই পথচারীদের রাস্তায় ঠেক, চুরি ও ডাকাতির ঘটনা ঘটে। আমাদের সন্দেহ এরাই রাতের আধারে এই ধরনের কাজ করে। এ সময় তাদের হাতে ধারালো অস্ত্র দেখতে পেয়ে এলাকার সাধারণ লোকজন ভীত হয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জিএস তসলিম আহাম্মেদ জানায়, গতকাল রাতে আমার নিজ এলাকা থেকে কয়েকজন যুবককে অস্ত্রসহ এলাকাবাসী আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে আমি শুনেছি। এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে অস্ত্রধারী যেই হউক তাদের উপযুক্ত বিচারের আওতায় আনা প্রয়োজন বলে আমি মনে করি।

ফরিদগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রকিব বলেন, ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে তারা মারামারির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এলাকাবাসী তাদের আটক করে আমাদের খবর দেয়, অতঃপর আমরা তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসি। তবে তারা ছাত্র বিধায় অস্ত্র আইনে মামলা হবে না, নিয়মিত মামলা হবে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন