ভারি বর্ষণে রাস্তায় জলাবদ্ধাতা ও ভাঙন : চলাচলে চরম দুর্ভোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি :
বিরামহীন ভারী বর্ষণে মতলব পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের পূর্ব কলাদী ও ঘোষপাড়া, মতলব বাজারস্থ কালীবাড়ি রাস্তাসহ বিভিন্ন এলাকার রাস্তা ঘাটে পানি আটকে পড়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে চলাচলে মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। বৃষ্টির পানিতে সড়ক ভেঙ্গে খালে ডেবে গেছে, ফলে জনসাধারণের যোগাযোগে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে।

বিশেষ করে পৌরসভার বেশির ভাগ রাস্তা ও অলি গলি পানি আটকা পড়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নেও নিম্নাঞ্চলের অধিকাংশ কাঁচা-পাকা রাস্তা তলিয়ে গেছে এবং রাস্তায় থাকা গাছ পড়ে রয়েছে। এতে যানচলাচল ও মানুষের যাতায়াতের ভোগান্তির সৃষ্টি হচ্ছে।

সরেজমিন ও বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, অবিরাম বর্ষণের ফলে পৌরসভার ঘোষপাড়া, মধ্য কলাদি, পূর্ব কলাদি, টিএন্ডটি, থানা রোডসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। পানি নিষ্কাশনের ড্রেনেজ ব্যবস্থা সীমিত থাকার ফলে আটকা পড়া বৃষ্টির পানি সড়তে দীর্ঘ সময় লেগে যায়। মতলব গঞ্জপাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠটিও পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে করে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। পানি সরতে না পারায় জলাবদ্ধার মূল কারণ।

এছাড়া পাকা সড়কগুলোতেও পানি জমে ছোট বড় সৃষ্টি হয়। মধ্য কলাদির বাসিন্দা আশীষ সরকার বলেন, পর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকার কারণে পুকুর এবং ডোবাগুলো ভরাট করা ফলে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে।

জলাবদ্ধতার কারণে পৌর বাসীর চলাচলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। পৌরসভা ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সারোয়ার সরকার লিখন বলেন, জমে থাকা বৃষ্টির পানি সরানোর জন্য কাজ করা হচ্ছে। অচিরেই জলাবদ্ধতার অবসান হবে।

মতলব পৌরসভার মেয়র আওলাদ হোসেন লিটন বলেন, হাঠৎ করে ভারি বর্ষণের ফলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হলেও তা নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শীঘ্রই জলাবদ্ধতা নিরশনে স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

উপাদী দক্ষিণ ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা জানান, একদিকে বর্ষাকাল আর অপরদিকে ভারী বর্ষণের ফলে ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চলের রাস্তা-ঘাট তলিয়ে গেছে। আবার অনেক পুকুরের মাছ পানিতে ভেসে গেছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।