সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ চলচ্চিত্র প্রদর্শনের পরিপত্র

নিজস্ব প্রতিনিধি :
দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শৈশব, কৈশোর ও তারুণ্যের জীবন নিয়ে নির্মিত ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ চলচ্চিত্রটি প্রদর্শনের নির্দেশে দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মঙ্গলবার মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের উপ-সচিব আনোয়ারুল হক স্বাক্ষরিত এক পরিপত্রে এ নির্দেশনা দেয়া হয়।

নির্দেশনায় বলা হয়, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শৈশব, কৈশোর ও তারুণ্যের জীবনকে নিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া’ চলচ্চিত্রটি। জাতির পিতার হাতে স্থাপিত চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থা (এফডিসি) হতে এযাবৎ কালের এটিই প্রথম জাতির পিতার জীবনী ভিত্তিক নির্মিত চলচ্চিত্র।

আশা করা যায়, এ চলচ্চিত্রটি দেখার মধ্য দিয়ে আমাদের শিক্ষার্থীরা জাতির পিতার জীবনের আদর্শ, তাঁর সাহস, সংগ্রাম, তাঁর ত্যাগ এবং দেশ ও মানুষের প্রতি তাঁর গভীর, অসীম ভালোবাসা সম্পর্কে জানতে পারবে এবং তাদের জীবনের ওপর-এর প্রভাবও অত্যন্ত ইতিবাচক হবে।

পরিপত্রে আরো বলা হয়েছে, চলচ্চিত্রটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার সহযোগী প্রতিষ্ঠান ‘সিনেবাজ’ অ্যাপসে উদ্বোধন করা হয়েছে। সিনিবাজ ওটিটি প্ল্যাটফর্মে প্রথম চলচ্চিত্র হিসেবে ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ চলচ্চিত্রটি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সেখানে বিনাম‚ল্যে এ চলচ্চিত্রটি দেখা যাচ্ছে। তাই ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ চলচ্চিত্রটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রদর্শনের জন্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানকে কোনো ম‚ল্য পরিশোধের প্রয়োজন হবে না।

এ অবস্থায় এ চলচ্চিত্রটি সিনেবাজ ওটিটি প্ল্যাটফর্মে বিনামূল্যে বর্তমানে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অনলাইনে এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসম‚হ খোলার পর প্রতিষ্ঠানে চলচ্চিত্রটি দেখানোর যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানকে নির্দেশনা প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হলো।

প্রসঙ্গত, ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ চলচ্চিত্রে বঙ্গবন্ধুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক শান্ত খান। বঙ্গবন্ধুর স্ত্রী রেনুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। ছবিটি সেন্সর বোর্ডে কয়েক দফা প্রদর্শনের পর মুক্তির অনুমতি পায়।
এর আগে ইতিহাসভিত্তিক এ চলচ্চিত্রটির ট্রেইলার শাপলা মিডিয়া, ভয়েস টিভি ও সিনেবাজ অ্যাপসের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেইজে সবার জন্যে উন্মুক্ত লাইসেন্সে প্রকাশ করা হলে ব্যাপক সাড়া জাগে।

চলচ্চিত্রটির পরিচালক ও শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার মোঃ সেলিম খান জানান, বঙ্গবন্ধু সার্বজনীন। এ মহান নেতার জীবনটাই বর্ণাঢ্য ইতিহাস আর গৌরবের নানা অধ্যায়ে পরিপ‚র্ণ। বঙ্গবন্ধুর শৈশব-কৈশোরও সবার জন্য অনুকরণীয় আদর্শ। তাই, আমরা নির্মাণ করেছি ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’।

স্টোরি স্পø্যাশ প্রোডাকশনের ব্যানারে নির্মিত চলচ্চিত্রটির প্রযোজক পিংকি খান জানান, এ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম জানতে পারবে ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধুর শৈশব ও কৈশোর জীবনের কথা।

ইতিহাস ভিত্তিক চলচ্চিত্রটির চিত্রনাট্য লিখেছেন শামীম আহমদে রনি। চলচ্চিত্রটি পরিবেশনায় রয়েছে শাপলা মিডিয়া। ডিজিটাল ফরমেটে তৈরি এ সিনেমার ব্যপ্তিকাল ২ ঘণ্টা ১২ সেকেন্ড।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন