করোনায় হাইমচরে ৩০ হাজার পরিবার কর্মহীন

মো. খুরশিদ আলম :
মহামারী করোনার প্রভাবে হাইমচরের ৬টি ইউনিয়নের ৫৪ ওয়ার্ড এলাকার প্রায় ৩০ হাজার পরিবার কর্মহীন হয়ে পড়েছে। দিনমজুর, চা দোকানী, রিক্সা, ভ্যান, অটো, সিএনজি চালক, ছোট, মাঝারী ও বড় ব্যবসায়ী হতে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ ঘরবন্দী অবস্থায় কর্মহীন হয়ে পড়েছে। এমনকি অনেক প্রবাসী পরিবার প্রবাসে রোজগার/আয় করা ব্যক্তি ঘরবন্দি সেই সকল ব্যক্তিদের দেশে থাকা পরিবার পরিজন অধিকাংশই অসহায় অবস্থায় আছে।

উপজেলা সদর আলগী বাজার সাইকেল মেকার কর্নজিত জানান, এক সপ্তাহ কোন আয় নেই। বিদ্যুৎ মিস্ত্রি কৌশিকের কোন কাজ নেই, বেকার ঘরবন্দী। ঝালাইকারক পরিমলেরও কাজ নেই। স্ত্রী- সন্তন নিয়ে অসহায় অবস্থায় আছে। একই অবস্থা মহজমপুরে দিনমজুর নিখিল মাঝি, মৃত লনী গোপালের বিধবা স্ত্রী সাধনা, উত্তর আলগী ভ্যানচালক সিরাজ, রিক্সাচালক রুশু মিয়া, মহজমপুরের রিক্সাচালক মোক্তারসহ অসংখ্য রিক্সাশ্রমিক বলেন, মানুষ তো ঘর হতে বের হয় না। আমরা রিক্সা নিয়া কই যামু, মহজপুরের গাছকাটা শ্রমিক মজিল ভুইয়া, আলগী বাজার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আহসান উল্লাহ, কার্তিক স্বর্ণকার, চা দোকানদার আলমগীর, মটর সাইকেল মেকার রাসেল, অটোচালক সুরুজ, অটোচালক সুজন সুতার, মহজমপুর দিনমজুর আলী কোতয়াল, মহজমপুর কলোনীর সিরাজ, মিজানসহ অসংখ্য দিনমজুর জানায়, এক সপ্তাহ কর্মহীন, স্ত্রী-সন্তান নিয়ে সংকটে আছি। মানুষজনের কর্ম না থাকায় অসহায় জীবনযাপন করছে, শত শত পরিবার। অনেকে লোকলজ্জায় কারো কাছে হাত পাতায় ইতস্ত করছেন।
আলগী উত্তর ইউনিয়নের মেম্বার ফারুক গাজী বলেন, আমার ওয়ার্ডে প্রায় ১৪ দরিদ্র পরিবার। মঙ্গলবার পর্যন্ত কোন পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিতে পারি নাই।

আলগী দক্ষিণ ইউনিয়নের শিক্ষক নেতা সালাউদ্দিন মাস্টার জানান, তার এলাকায় কয়েক শত পরিবার ঘরবন্দী অবস্থায় আছে। উপজেলা চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটওয়ারী ও সমাজের বিত্তশালীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

হাইমচর উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের উদ্যোগ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপির পক্ষ হতে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ঘরে থাকা কর্মসূচি চলমান আজ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৩ হাজার পরিবারে খাদ্য সামগ্রী দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফেরদৌসী বেগম বলেন, এই দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য আমরা খাদ্য সহায়তা দিয়ে যাচ্চি, করোনায় কর্মহীনদের তালিকা প্রণয়নে ইউপি চেয়ারম্যানদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে হতাশ হওয়ার কিছু নাই। সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক প্রত্যেক পরিবারের জন্য খাদ্য সহায়তা দেয়া হবে।

উপজেলা চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটওয়ারী বলেন, করোনার এই মহাদুর্যোগে অসহায় ও পরিস্থিতির শিকার মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে, আমি উদ্যোগ নিয়েছি, আপনারা যারা বিত্তবান আছেন এই কর্মে আমার সাথে শরীক হয়ে অথবা ব্যক্তি পর্যায়ে মানবসেবায় নিয়োজিত হওয়ার আহবান রইল। ইনশাআল্লাহ, সরকার ও ব্যক্তিগত পক্ষ হতে পর্যায়ক্রমে প্রত্যেক পরিবারে খাদ্য সহায়তা পৌঁছানোর জন্য আমরা চেষ্টা করছি।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন