চাঁদপুরে জনপ্রতিনিধি পুলিশ শিক্ষক স্বাস্থ্যকর্মীসহ ৪৯জনের করোনা শনাক্ত

রহিম বাদশা :
চাঁদপুরে আরো ৪৯জনের নমুনা টেস্টের রিপোর্ট করোনা পজেটিভ এসেছে। এর মধ্যে শাহরাস্তির ১৪জন, হাইমচরের ৯জন, মতলব দক্ষিণের ৮জন, হাজীগঞ্জের ৭জন, কচুয়ার ৬জন, মতলব উত্তরের ৩জন, ফরিদগঞ্জের ২জন।
জেলার মধ্যে একমাত্র চাঁদপুর সদরে নতুন কোনো আক্রান্ত নেই। নতুন শনাক্তকৃতদের মধ্যে মৃত রয়েছেন ৩জন। এরা হলেন- হাজীগঞ্জের মৃত কাজী মোজাম্মেল হক ও আবু তাহের এবং শাহরাস্তির মৃত ইউপি চেয়ারম্যান সফি আহম্মেদ মিন্টু রয়েছেন।

চাঁদপুর সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। সূত্র জানায়, শনিবার ৯৪টি রিপোর্ট এসেছে। এর মধ্যে ৪৯টি করোনা পজেটিভ। নেগেটিভ ৪৫টি। নতুন ৪৯জনসহ জেলায় মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৪১৩জন। এদের মধ্যে মারা গেছেন ৩২জন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে হাইমচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটওয়ারী, কয়েকটি থানার পুলিশ ও তাদের পরিবারের সদস্য, শিক্ষক, স্বাস্থ্যকর্মী, ব্যবসায়ী, সরকারি অফিসের কর্মচারীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ রয়েছেন।

চাঁদপুরে জেলায় বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত ৪১৩জনের উপজেলাভিত্তিক পরিসংখ্যান হলো : চাঁদপুর সদরে ১৫৭জন, ফরিদগঞ্জে ৪৯জন, হাজীগঞ্জে ৪৯জন, শাহরাস্তিতে ৪৮জন, মতলব দক্ষিণে ৩৮জন, কচুয়ায় ২৮জন, হাইমচরে ২৫জন ও মতলব উত্তরে ১৯জন। এছাড়া জেলায় মোট ৩২জন মৃতের উপজেলাভিত্তিক পরিসংখ্যান হলো : চাঁদপুর সদরে ১০জন, হাজীগঞ্জে ৭জন, কচুয়ায় ৪জন, ফরিদগঞ্জে ৪জন, শাহরাস্তিতে ৪জন, মতলব উত্তরে ২জন ও মতলব দক্ষিণে ১জন।।

সিভিল সার্জন ডা. সাখাওয়াত উল্লাহ জানান, শনিবার চাঁদপুর থেকে আরো ১৬৫টি নমুনা পাঠানো হয়েছে ঢাকায়। এ নিয়ে প্রেরণকৃত নমুনার সংখ্যা দাঁড়ালো ২৯৫০টি। রিপোর্ট এসেছে ২৪৯০টি। রিপোর্ট অপেক্ষমান ৪৬০টি।

তিনি আরো জানান, জেলায় আক্রান্ত ৪১৩জনের মধ্যে ইতিমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৮০জন। চিকিৎসাধীন আছেন ৩০১জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ১৭৭জন। এর মধ্যে ইতিমধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছেন ১৫৩জন। বর্তমানে আইসোলেশনে রোগীর সংখ্যা ২৪জন। এছাড়া জেলায় মোট হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংখ্যা ৪৯০৫জন। এর মধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৩৬৯১জন। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১২১৪জন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন