চাঁদপুরে অর্থনৈতিক অঞ্চলের জন্য ৮ হাজার ১০২ একর জমি বন্দোবস্ত

বিশেষ প্রতিবেদক :
চাঁদপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল-২ (হাইমচর) স্থাপনে ৮ হাজার ১০২ একর খাসজমি বন্দোবস্ত দিয়েছে সরকার। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) অনুকূলে শর্তসাপেক্ষে দীর্ঘমেয়াদে ওই জমি বন্দোবস্ত দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ভূমি মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সংক্রান্ত প্রস্তাবনা অনুমোদন দিয়েছেন। ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ তথ্য জানা গেছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়নে চাঁদপুর-৩ আসনের এমপি ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির ঐকান্তিক প্রচেষ্টা রয়েছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে হাইমচর উপজেলা তথা চাঁদপুর জেলায় ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টি, ব্যবসা-বাণিজ্যের নতুন দ্বার উন্মোচন, শিল্প-কারখানার সম্প্রসারণসহ আর্থসামাজিক ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নতির আশা করা হচ্ছে। এছাড়া মতলব উত্তরে আরেকটি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের কাজও প্রক্রিয়াধীন।

বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) আবেদন এবং প্রস্তাব ও সুপারিশের প্রেক্ষিতে চাঁদপুর জেলার হাইমচর উপজেলাধীন ১নং খতিয়াভুক্ত চরহাইম, চরকোড়ালিয়া, চরপক্ষিদিয়া, নিউচর, মিয়ারচর, চরবৈরাগী, দিয়ারা তাজপুর সোনাপুর, চররাও, ঈশানবালা, চরগাজীপুর-মনিপুর, মোলায়েমবাড়ী, চরহাসাদী, বাজেয়াপ্তি, চরগাজীপুর-মনিপুর, গাজীপুর-কুতুবপুর ও মনিপুর মৌজাভুক্ত বিভিন্ন দাগের সর্বমোট ৮ হাজার ১শ’ ২ দশমিক শূন্য ৫ একর জমি বন্দোবস্ত দেওয়া হয়েছে। উল্লেখিত জমির ধার্য্যকৃত ৩ হাজার ৮শত ৩৯ কোটি ৩৯ লাখ ৯৪ হাজার ৫শ’ ৪০ টাকা সেলামির পরিবর্তে ১০ লাখ ১ হাজার ১শ’ টাকা প্রতীকি মূল্যে অকৃষি খাসজমি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্ত নীতিমালা অনুযায়ী ব্যতিক্রম সাপেক্ষে বন্দোবস্ত প্রদানের প্রস্তাব করা হয়। এ সংক্রান্ত প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন প্রদান করেন। এর প্রেক্ষিতে উল্লেখিত জমি বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের অনুকূলে শর্তসাপেক্ষে সরকার দীর্ঘমেয়াদী বন্দোবস্ত প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

ভূমি সচিব ও চাঁদপুরের কৃতি সন্তান মাকুছুদুর রহমান পাটওয়ারী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সানুগ্রহ অনুমোদন দিয়েছেন। চাঁদপুর জেলার সামগ্রিক আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এটি সুদূরপ্রসারী, অত্যন্ত দূরদর্শী, ইতিবাচক পরিবর্তন বয়ে আনবে। জীবন-যাপন ব্যবস্থায় আনবে ব্যাপক এবং অকল্পনীয় পরিবর্তন। উন্নত জীবনের ছোঁয়া এবং সাধারণ মানুষের ভাগ্যের আমূল পরিবর্তনের বীজ বপন করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। ৮ হাজার ১০২ একর জমির বাজার মূল্যও বিশাল। ৩ হাজার ৮শ’ ৩৯ কোটি ৩৯ লক্ষ ৯৪ হাজার ৫শ’ ৪০ টাকা। তবে রাষ্ট্রের সামগ্রিক উন্নয়নের দিক বিবেচনা করে মাত্র ১০ লাখ ১ হাজার ১শ’ ১ টাকায় প্রতীকী মূল্যে দীর্ঘমেয়াদী বন্দোবস্ত প্রদানের জন্য ভূমি মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অনুগ্রহ করে অনুমোদন দিয়েছেন।

এর আগে ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁদপুরের হাইমচরে বাংলাদেশ স্কাউটসের ৬ষ্ঠ জাতীয় কমডেকার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণ দিতে গিয়ে এখানে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার ঘোষণা দেন। ওই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি হেলিকপ্টারে করে আসার সময় এখানকার জায়গাগুলো দেখেছি। হাইমচর অঞ্চলটি পছন্দ হয়েছে। এখানে আমরা একটি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলবো। এখানকার মানুষ কাজের সুযোগ পাবে, সঙ্গে একটি পর্যটন কেন্দ্র হবে, নৌ-ভ্রমণের জন্য স্পট বানানো হবে।’ প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণার পর থেকেই হাইমচরে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার প্রক্রিয়া শুরু হয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন