চাঁদপুরে নদীতে নোঙ্গর করা বাল্কহেড ডুবে ২ নৌযান শ্রমিকের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুর এলাকায় মেঘনা নদীতে এমভি মক্কা-মদিনা-৩ নামের নোঙ্গর করে রাখা বাল্কহেড ডুবে ২ নৌযান শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। দুর্ঘটনার দীর্ঘ সময় পর পর্যন্ত ওই ২ শ্রমিক নিখোঁজ ছিলেন। পরে বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে মোহনপুর দশানিঘাট সংলগ্ন এলাকা থেকে নিখোঁজ শ্রমিক মো. মিজানুর রহমান (২৫) ও মো. সাজু শিকদারের মরদেহ উদ্ধার করে কোস্টগার্ডের ডুবুরি দল।

কোস্টগার্ড চাঁদপুর স্টেশন সূত্রে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার ভোর আনুমানিক ৪টার দিকে মোহনপুর দশানিঘাট সংলগ্ন এলাকায় এম ভি মক্কা-মদিনা-৩ নামের বালুর বাল্কহেড নোঙ্গর করা অবস্থায় ৪জন নৌযান শ্রমিকসহ ডুবে যায়। এর মধ্যে মহিউদ্দিন ও মো. নাঈম সিকদার নামে ২জন সাঁতরে পাড়ে উঠে যেতে সক্ষম হলেও অপর ২জন পানিতে ডুবে যায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে দ্রæততার সাথে কোস্টগার্ড স্টেশন চাঁদপুর স্টেশনের কমান্ডার লে. এম সাদিক হোসেনের নেতৃত্বে ১টি ডুবুরি দল উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করে। বিকেল ৩টার দিকে নিখোঁজ ২জনের মরদেহ বাল্কহেডে ইঞ্জিনরুমের ভিতর থেকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় কোস্টগার্ড।

উদ্ধারকৃত দুজন হলেন বরগুনা জেলার তালতলী থানার পশ্চিম জারাখী গ্রামের মো. জাহাঙ্গীর হাওলাদারের ছেলে মো. মিজানুর রহমান ও একই গ্রামের সালাম শিকদারের ছেলে মো. সাজু শিকদার (২৩)।

কোস্টগার্ড চাঁদপুর স্টেশন কমান্ডার লে. এম সাদিক হোসেন বলেন, বাল্কহেডটি ঘটনাস্থলে নোঙ্গর অবস্থায় ছিল। কি কারণে ডুবুছে তার কারণ জানা যায়নি। তবে ডুবে যাওয়ার সময় দুইজন শ্রমিক উপরে থাকায় সাঁতার কেটে উপরে উঠতে সক্ষম হয়। কিন্তু বাল্কহেডের ইঞ্জিনরুমে থাকা দুই শ্রমিক উঠতে না পারায় নিখোঁজ হয়। সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত উদ্ধার কার্যক্রম চালিয়ে ডুবুরি দল তাদের মরদেহ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

তিনি আরো বলেন, উদ্ধারকৃত দুই শ্রমিকের মরদেহ মোহনপুর নৌ-পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। কোস্টগার্ড ছাড়াও নৌ-পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন