চাঁদপুরে প্রস্তুত স্কুল-কলেজ : উচ্ছ্বসিত শিক্ষক-শিক্ষার্থী

শরীফুল ইসলাম :
অবশেষে প্রায় দেড় বছর পর রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে। ইতোমধ্যে চাঁদপুরের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারীরা। শনিবার (১১সেপ্টেম্বর) দুপুরে চাঁদপুর সরকারি কলেজে গিয়ে দেখা গেছে ধুলোমাখা বেঞ্চ, বøাকবোর্ড, ক্লাসরুমে ঝাড়পোঁছ করা হচ্ছে। চলছে পানি ছিটানো ও জীবাণুনাশক ছিটানোর কাজ। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশণার পর ৩ সেপ্টেম্বর শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি চাঁদপুরে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উদ্বোধন অনুষ্ঠানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ঘোষণা দেন। তারপর থেকে প্রতিষ্ঠানগুলোতে পুরোদমে চলে জোর প্রস্তুতি।

শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের হাতধোয়ার বেসিন স্থাপন, স্বাস্থ্যবিধি মানাতে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য হাতধোয়ার সঠিক নিয়ম, মাস্ক পরার নিয়ম, হাঁচি-কাশির শিষ্টাচারও টাঙানো হচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলোতে। এদিকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার অপেক্ষার প্রহন গুনছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। দীর্ঘদিন পর প্রতিষ্ঠান খোলার কারনে এক রকম উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে তাদের মাঝে। শিক্ষা কার্যক্রম চালু করতে অনেকটা ব্যস্ত সময় পার করছেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষ।

চাঁদপুর সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী সাইফ ও ইমতিয়াজ বলেন, আবার আমরা কলেজে এসে ক্লাস করতে পারবো, এটা ভেবে আনন্দ লাগছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে না আসলে পড়াশুনার প্রতি আগ্রহ কম থাকে। কলেজে এসে দেখি পুরো কলেজে পরিচ্ছন্নতার কাজ চলছে। নতুন রুপে ফিরেছে আমাদের কলেজ।

চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অসিত বরণ দাশ বলেন, গত ৮সেপ্টেস্বর থেকে আমাদের কলেজে পরিচ্ছন্নতার কাজ শুরু হয়। একাদশ ও দ্বাদশ শেণীর রাজু ভবনের ১২টি কক্ষ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাস পরিচালনার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। প্রতিটি ফ্লরে ওয়াশবøক ২টিসহ পানির ফিল্টার, হ্যান্ডওয়াশ, সেনিটািইজার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা রয়েছে। তিনি আরও বলেন, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাস পরিচালনার করার জন্য আমাদের ৭ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি করা হয়েছে। প্রতিদিন একাদশ ও দ্বাদশ শেণীর জন্য ২টি করে ক্লাস প্রদান করার রুটিন প্রণয়ন করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।