চাঁদপুরে ম্যানুয়াল বিচার পদ্ধতি চালুর দাবিতে আইনজীবীদের বিক্ষোভ

শাওন পাটওয়ারী :
চাঁদপুর আদালতে ভাচুর্য়াল কোর্টের কার্যক্রম চালুর প্রতিবাদে এবং ম্যানুয়াল বিচার পদ্ধতি চালুর দাবিতে বিক্ষাভ সমাবেশ করেছে চাঁদপুরের আইনজীবীরা। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় জেলা আদালত প্রাঙ্গণে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে জেলা আইনজীবী সমিতি।

সমাবেশে গণমাধ্যমের উদ্দেশ্যে আইনজীবীরা জানান, বাংলাদেশসহ সারাবিশ্ব কোভিড-১৯ মহামারি দ্বারা আক্রান্ত হওয়ায় বাংলাদেশের সকল অফিস, আদালত, গণপরিবহন, দোকানপাট, শিল্প কারখানা প্রায় ৩ মাসাধিক বন্ধ ছিল। দীর্ঘদিন যাবত আদালত, শিল্প কারখানা, দোকানপাট বন্ধ থাকায় দেশের অর্থনীতি ভেঙ্গে পড়ার সম্ভাবনা দেখা দেয়।

ফলে সরকার দেশের অর্থনীতি সচল রাখার জন্য সীমিত আকারে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অফিস আদালত, গণপরিবহন, দোকানপাট ও শিল্প কারখানা একটি নির্দিষ্ট সময় চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়, তারই অংশ হিসেবে মহামান্য সুপ্রীম কোর্টের প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে হাইকোর্টসহ নিন্ম আদালত ভাচুর্য়াল পদ্ধতিতে জরুরী বিষয় শুনানীর সিদ্ধান্ত প্রদান কর।

কিছু ভাচুর্য়াল পদ্ধতিতে বিচার কাজ পরিচালনা করতে গিয়ে শুধু ফৌজদারী আদালত জামিন শুনানী কিছুটা সম্ভব হলেও জনগণের ন্যায় বিচারর জন্য যে সকল বিষয়ে বিচার দেয়া ও হওয়া প্রয়োজন তা সম্ভব নয়।

উদাহরণ হিসেবে আইনজীবীরা বলেন, ফৌজদারী আদালত অভিযাগ দায়ের যথা এনআই এ্যাক্ট এর মোকাদ্দমার সময়সীমা অতিক্রান্ত হয়ে যায়। ফৌজদারী আদালতর চার্জশীটভুক্ত আসামীদের স্বেচ্ছায় হাজির করানো সম্ভব হচ্ছে না। দেওয়ানী আদালত কিছু গুরুত্বপূর্ণ মামলা যেমন ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনাল, কবলা পাওয়ার মামলা, পিয়মশন মামলা, খাস দখলের মামলা দায়ের করার নির্দিষ্ট সময় অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও উক্ত মামলাগুলা দায়ের করা সম্ভব হচ্ছে না।

তাছাড়া ইতিপূর্বে যে সমস্ত নিষেধাজ্ঞা মামলা করা হয়েছে, উক্ত মামলায় অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্বেও বিবাদীপক্ষ তাদের দলীয় ভূমিদস্যু সন্ত্রাসী দ্বারা আদালত বন্ধ থাকার সুযোগে বাদীকে বেদখল করলে বাদী কোনরুপ আইনের আশ্রয় নিতে পারে না। আবার কোন আপীল বা রিভিশন দায়েরের সময়সীমা অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও দায়ের করা যাচ্ছে না।

ভাচুর্য়াল পদ্ধতিতে কোর্ট পরিচালনা করার ক্ষেত্রে উপরোক্ত বিষয়গুলো কার্যক্রমের কোন সুযোগ না থাকায় বিচারপ্রার্থীরা জনগণ ন্যায়বিচার হতে বঞ্চিত হচ্ছে।

সুতরাং, আমাদের চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির বিজ্ঞ সদস্যদের দাবী ভাচুর্য়াল পদ্ধতিতে বিচার পদ্ধতি বাতিল করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সীমিত আকারে কোর্ট পরিচালনা করে চালু করা হোক।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ইব্রাহীম খলিল, সাধারণ সম্পাদক এমরান হোসেন, সাবেক সভাপতি ইকবাল-বিন-বাশার, ফজলুল হক সরকার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন আহমেদ, সাবেক পিপি আমান উল্যাহ, আইনজীবী এ জেড এম রফিকুল হাসান, খোরশেদ আলম, জয়নাল আবেদীন, বিধু ভুষন নাথ, আবদুল কাদের খান, নুরুল আমিন খান, সেলিম চৌধুরী, সালমা, দিরান মাহবুবা ইয়ারিন প্রমুখ।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন