চাঁদপুর পৃথক আদালতে ৫৩টি ভার্চুয়াল শুনানী, ৩২জনের জামিন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে প্রায় দেড় মাস পরে চাঁদপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালত, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল এবং চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৫৩টি জামিনের ভার্চুয়াল (আবেদন) শুনানি হয়েছে। এর মধ্যে ৩২জনের জামিন মঞ্জুর, ৬টি বাতিল, ১৩টি নামঞ্জর করে আদালত ও শুনানির জন্য অপেক্ষমান রয়েছে ৪টি মামলা।

আদালতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে বিচারকাজ চালানোর বিষয়ে অধ্যাদেশ জারির প্রেক্ষিতে নিম্ন আদালতের ভার্চুয়াল কোর্টে জামিন শুনানি করতে চলতি মাসের ১০ মে নির্দেশনা দিয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট প্রশাসন। সেই অধ্যাদেশের পর তৃতীয় দিন ১৩ মে থেকে চাঁদপুরে কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথম দিনে ৪২টি ভার্চুয়াল আবেদন শুনানি হয়। এর মধ্যে ১৭জনের জামিন মঞ্জুর হয়।

জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পেশকার (বেঞ্চ সহকার) শাহ আলম জানান, বৃহস্পতিবার জেলা জজ আদালতের (ভারপ্রাপ্ত) জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ সরওয়ার আলমের আদালতে ভার্চুয়ালে ১৮টি জামিনের আবেদন শুনানী করা হয়। এর মধ্যে ১৫জন আসামির জামিন মঞ্জুর এবং ৩জনের জামিন নামঞ্জুর করেন আদালত।

তিনি আরো জানান, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের নির্ধারিত বিচারক না থাকায় জেলা ও দায়রা জজ (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ সরওয়ার আলম এই আদালতের জামিন শুনানী করেন। এই আদালতে ৫টি আবেদন শুনানী করা হয়। এর মধ্যে দুই জনের জামিন মঞ্জুর এবং ৩জনের জামিন না মঞ্জুর করা হয়।

চীফ জুডিসিয়্যাল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মাছুম বিল্লাহ জানান, আজকে চীফ জুডিসিয়্যাল ম্যাজিস্ট্রেট (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ শফিউল আজম এর আদালতে ৩০টি মামলার শুনানি করা হয়। এর মধ্যে ১৩টি আবেদন শুনানীর মধ্যে ১৫জনের জামিন মঞ্জুর, ৬টি বাতিল, ৭টি জামিন না মঞ্জুর এবং শুনানির জন্য অপেক্ষমান রয়েছে ৪টি।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন