নভেম্বরে চাঁদপুর পৌর ও ইউপি নির্বাচনের পর মেয়াদোত্তীর্ণ উপজেলার সম্মেলন

ফরিদগঞ্জ, মতলব উত্তর ও কচুয়ার বিষয়ে ঢাকায় বিশেষ বৈঠক হবে : ৭ অক্টোবর মতলব দক্ষিণে বিশেষ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
আগামী ৭ অক্টোবর মতলব দক্ষিণ উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতির মৃত্যুতে ওই পদটি পূরণের জন্য এই বিশেষ সম্মেলন। এছাড়া নভেম্বরে চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। চাঁদপুর সদর, হাইমচরসহ মেয়াদোত্তীর্ণ অন্যান্য উপজেলা কমিটির সম্মেলনে আসন্ন ইউপি নির্বাচনের পর অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ নিয়ে ঢাকায় দলের বিশেষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে কেন্দ্রীয় ও বিভাগীয় সাংগঠনিক টিমের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও বর্তমান ও সাবেক সংসদ সদস্য, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান উপস্থিত থাকবেন। কচুয়া ও মতলব উত্তর নিয়েও একই ধরণের বৈঠক হবে।

চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় এসব সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে। রোববার অর্ধদিবসব্যাপী ওই বৈঠকে সাংগঠনিক আরো কিছু বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটির বিরুদ্ধে মামলা দায়েরকারীকে শোকজ করারও সিদ্ধান্ত হয়েছে। বর্ধিত সভায় সভাপতিত্ব করেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দীন আহমেদ। সভা সঞ্চালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম মোহাম্মদ দুলাল পাটোয়ারী।

বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এমপি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি, সাবেক মন্ত্রী মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি, চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ডক্টর সেলিম মাহমুদ, চাঁদপুর-৪ আসনের এমপি মুহম্মদ শফিকুর রহমান ও চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. নুরুল আমিন রুহুল।

আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি জানান, প্রায় ৪ ঘণ্টা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় বিভিন্ন সাংগঠনিক সংকট ও তার সমাধান নিয়ে আলোচনা হয়। গত শনিবার অনুষ্ঠিত তৃণমূল প্রতিনিধি সভায় যেসব সংকট উঠে এসেছে সেগুলো নিয়েও আলোচনা হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের বক্তব্য শোনা হয়েছে। এরপর আমরা বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যেসব উপজেলা কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে সেখানে ওয়ার্ড থেকে সম্মেলন শুরু করে ইউনিয়ন সম্মেলন করার পর উপজেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া নভেম্বরে চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। তার আগে পৌর আওয়ামী লীগের যেসব ওয়ার্ডে কাউন্সিল হয়েছে সেগুলো নিয়ে কিছু অভিযোগ আছে। সে অভিযোগগুলো সমাধানের জন্য জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের একটি টিম করা হয়েছে। টিম নেতারা আমাদের রিপোর্ট দেবেন সময়ের মধ্যে। এরপরই আমরা পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন আয়োজন করব। এছাড়া সহযোগী সংগঠনের যেগুলো মেয়াদোত্তীর্ণ আছে তাদের দ্রুত সম্মেলন করে ফেলার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন