মেয়র কাঁদলেন, কাঁদালেন!

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুর পৌরসভার বর্তমান পরিষদের সর্বশেষ কর্মদিবস ছিল গতকাল বৃহস্পতিবার। আগামীকাল শনিবার নবনির্বাচিত পৌর পরিষদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এরপর নতুন পরিষদ তাদের দায়িত্ব পালন শুরু করবে।

বৃহ্স্পতিবার (২২ অক্টোবর) শেষ কর্মদিবসে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে বিদায়ী সভা করেন বিদায়ী মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ। টানা ১৪ বছর ৮ মাস ২০ দিন দায়িত্ব পালনের অসংখ্যা স্মৃতি বিজড়িত পৌরসভায় বিদায়ী কর্মদিবসে অশ্রু সংবরণ করতে পারেননি সফলতম এই মেয়র। এ সময় সেখানে এক আবেগঘন অশ্রুসজল পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

দীর্ঘদিনের নগরপিতাকে বিদায় জানাতে যেয়ে শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় অঝোরে কেঁদেছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও। বিশেষ করে কয়েকজন বয়োবৃদ্ধ কর্মচারী মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদকে জড়িয়ে শিশুর মতো কান্না করেন। এদের একজন জানালেন- ‘আগে পৌর কর্মচারীরা অবসরে যাওয়ার সময় পিএফও গ্র্যাচুইটি বাবদ কোনো টাকা মজুদ ছিল না। নাছির উদ্দিন মেয়র হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর পূর্বে অবসরে যাওয়া কর্মচারীদের বকেয়া পরিশোধ করে আগামীতে অবসরে যাওয়া কর্মচারীদের জন্য বড় ফান্ড রেখে গেছেন। তিনি পৌরবাসীর পাশাপাশি সব সময় কর্মচারীদের কল্যাণের কথাও ভেবেছেন। তাকে ভুলি কিভাবে!’

উল্লেখ্য, নাছির উদ্দিন আহমেদ চাঁদপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে ২০০৬ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি দায়িত্বগ্রহণ করেন। এরপর সরকার দেশের সব পৌরসভার চেয়ারম্যানের পদটি মেয়র হিসেবে ঘোষণা করলে ২০০৮ সালের ১৪ মে পৌরসভার মেয়র হিসেবে তার দায়িত্ব পালন শুরু হয়। তিনি পরপর দু’বার চাঁদপুর পৌরপিতা (চেয়ারম্যান/মেয়র) নির্বাচিত হন। তার সময়কালে পৌরসভার এরিয়া ৯ বর্গকিলোমিটার থেকে ২২ বর্গকিলোমিটারে উন্নীত হয়। আরো ৫৭ বর্গকিলোমিটার বৃদ্ধির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।