চাঁদপুরে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী যুবতীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ : ৩ ধর্ষক আটক

শিমুল হাছান :
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী যুবতী (২১) কে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ তিন বখাটে যুবককে আটক করেছে পুলিশ।
পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদের নির্দেশে বুধবার রাতে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসেন ও ওসি (তদন্ত) প্রদীপ মন্ডল সঙ্গীয় ফোর্সসহ ফরিদগঞ্জ পৌর এলাকার পূর্ব বড়ালী গ্রামে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযুক্ত ৩ বখাটেকে আটক করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলেন- পৌর এলাকার পূর্ব বড়ালী গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের ছেলে মো. সাকিব (১৯), মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার হরিশপুর এলাকার ইছা মোল্লার ছেলে সুজন মোল্লা (১৯) এবং নোয়াখালী জেলার সুবর্ণচর উপজেলার হাজীপুর এলাকার মো. সেলিম মিয়ার ছেলে মো. শাহিন (২২)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার (২০ মে) রাতে পূর্ব বড়ালী এলাকার হারুন গাজীর গরুর খামারে পাশের ইব্রাহীম গাজীর খেরের গাঁদায় নিয়ে ওই মেয়েকে পালাক্রমে ৩ যুবক ধর্ষণ করে।

পুলিশ আরো জানায়, হারুন গাজীর গরুর খামারে কাজের সুবাদে সুজন মোল্লা ওই মেয়েটির সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এরপর সুজন মেয়েটির সাথে শারীরিক সম্পর্ক করার সময় তার সহপাঠী শাহিন দেখে ফেলে। এরপর শাহিন মেয়েটির সাথে শারীরিক সম্পর্ক করাতে সুজনকে বাধ্য করে। এ সময় স্থানীয় যুবক মো. সাকিব এই ঘটনা দেখে ফেলে এবং একই কায়দায় মেয়েটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

এরপর ৩ বখাটে তাদের স্ব স্ব অবস্থানে চলে যায়। এ ঘটনায় মেয়েটি তাৎক্ষণিক তার পরিবারের কাছে কিছু না বললেও পরে যখন মেয়েটি শারীরিক সমস্যা অনুভব করে তখন মেয়েটি তার মায়ের কাছে বিষয়টি খুলে বলে। মেয়ের মা বিষয়টি জানার পর পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ সাথে সাথে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় অভিযুক্ত ৩ যুবককে আটক করে।

এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসেন জানান, ধর্ষণের সংবাদ শুনে অভিযান পরিচালনা করে আমার তিন ধর্ষককে আটক করেছি ও ভিকটিম মেয়েটিকে ডাক্তারী পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছি। ধর্ষণ মামলায় আটককৃত ৩জনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।