ফরিদগঞ্জে ধানের শীর্ষ প্রার্থীর কর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা : আহত দুই

নিজস্ব প্রতিনিধি :
ফরিদগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণার প্রায় শেষ মুহূর্তে এসে রক্তাক্ত হলো বিএনপি। এমন অভিযোগ করলেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী এবং তার কর্মীরা। তারা অভিযোগ করে বলেন, ঠিক মাগরিবের নামাজের সময় বাজার থেকে মাহাবুবুর রহমান সোহাগ ও জহিরের নেতৃত্বে ২০/২৫জনের একটি টিম এসে আমাদের উপর অর্তকিত হামলা করে। এ সময় আমরা সন্ধ্যার নাস্তা খাচ্ছিলাম।

তারা আরো বলেন, নৌকার অফিস থেকে এসে আমাদের উপর হামলা করে। হামলায় দলীয় কর্মী আনোয়ার হোসেন (২৫) ও সালমান (২২) নামের দু’জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে আনোয়ার হোসেনকে সাথে সাথে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, প্রতিদিনের মতো ধানের শীর্ষের কর্মীরা গণসংযোগ করে এসে এখানে নাস্তা খায়। হঠাৎ করে কিছু সংখ্যক নৌকার কর্মীরা হোটেলে অর্তকিতে হামলা চালায়।

সংবাদ পেয়ে সাথে সাথেই ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ শহীদ হোসেন অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে বাসস্ট্যান্ডে চলে আসেন এবং ঘটনার খোঁজ-খবর নেন। ধানের শীষের কর্মীদের শান্ত থাকার অনুরোধ করেন। এ সময় সেখানে সাবেক মেয়র মঞ্জিল হোসেন, ধানের শীর্ষ প্রার্থী মো. ইমাম হোসেন, যুবদল নেতা জাহাঙ্গীর আলম নান্টু, আব্দুল মতিন, ফারুকসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সম্পর্কে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. ইমাম হোসেন বলেন, প্রতিদিনের মতো আমার ধানের শীষের কর্মীরা গণসংযোগ করে এসে এই হোটেলে নাস্তা খায়। আজ পুলিশ প্রশাসনের উপস্থিতিতে নৌকার কর্মীরা নাস্তা খাওয়া অবস্থায় অতর্কিত হামলা করে।

এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ বলেন, নির্বাচনে এ রকম টুকিটাকি ঘটনা ঘটবেই। সামনের দিকে যাতে অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে জন্য বাসস্ট্যান্ডে পুলিশ মোতায়েন আছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।