বাবা-মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত সাংবাদিক ইকরাম চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক :
প্রিয়জনদের কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন কিংবদন্তী সাংবাদিক নেতা, বহুগুণের অধিকারী, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের একাধিকবারের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ইকরাম চৌধুরী।

শনিবার (৮ আগস্ট) বিকেলে চাঁদপুর প্রেসক্লাব মাঠ ও চাঁদপুর সরকারি কলেজ মাঠে তিন দফা নামাজে জানাযার পর বাসস্ট্যান্ডস্থ পৌর কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়েছে তাকে।

শনিবার বিকেল ৩টা ৪৫ মিনিটে মরহুম ইকরাম চৌধুরীকে বহনকারী লাশবাহী গাড়ী প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে এসে পৌঁছলে অপেক্ষমান সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ তাদের প্রিয় নেতার জন্যে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। এ সময় এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা সৃষ্টি হয়।

প্রেসক্লাব মাঠে অনুষ্ঠিত মরহুমের প্রথম জানাজার পূর্বে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে মুঠোফোনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের আজীবন সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি। তিনি তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা পূর্বক শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

ডা. দীপু মনি বলেন, জনাব ইকরাম চৌধুরীর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে আমি যেনো আমার ভাই, সুহৃদ ও একজন আপন মানুষকে হারালাম। আমি খুবই শোকাহত। আমার যে কোনো প্রয়োজনে তিনি আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন। আমিও চেষ্টা করেছি তাঁর পাশে দাঁড়াতে। তিনি ছিলেন বহুগুণের অধিকারী একজন স্বজ্জন ব্যক্তি।

তিনি আরো বলেন, চাঁদপুরের সাংবাদিক জগতে তিনি ছিলেন একজন অভিভাবক। তিনি চাঁদপুরের সাংবাদিক জগতকে এক ও অভিন্ন রাখার চেষ্টা করে গেছেন। শিক্ষামন্ত্রী যে কোনো প্রয়োজনে মরহুম ইকরাম চৌধুরীর পরিবারের পাশে থাকবেন বলেও অভিমত ব্যক্ত করেন।

মুঠোফোনে আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ সাইফুল আলম ও জাগো নিউজের সম্পাদক মহিউদ্দিন সরকার। এছাড়া বক্তব্য রাখেন ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, প্রেসক্লাবের আজীবন সদস্য তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী।

মরহুমের বর্ণাঢ্য সাংবাদিকতা জীবনের উপর সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি কাজী শাহাদাত, গোলাম কিবরিয়া জীবন, প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন, সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ জালাল চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্লাহ, সাবেক সভাপতি শহীদ পাটোয়ারী, ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, বিএম হান্নান, মরহুম ইকরাম চৌধুরীর পরিবারের পক্ষে প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শরীফ চৌধুরী।

আরো বক্তব্য রাখেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, সোহেল রুশদী, জিএম শাহীন, মির্জা জাকির, লক্ষ্মন চন্দ্র সূত্রধর, চাঁদপুর সংবাদের সম্পাদক ও প্রকাশক আবদুর রহমান, চাঁদপুর দিগন্তের সম্পাদক ও প্রকাশক অ্যাডঃ শাহজাহান মিয়া, চাঁদপুর জমিনের সম্পাদক ও প্রকাশক রোকনুজ্জামান রোকন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আল-ইমরান শোভন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শান্ত, আলম পলাশ, প্রচার সম্পাদক মাহবুবুর রহমান সুমন, কোষাধ্যক্ষ রিয়াদ ফেরদৌস, জেলা ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি একে আজাদ, সাধারণ সম্পাদক তালহা জুবায়ের।

উপজেলা থেকে আসা সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কচুয়া উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি রাকিবুল হাসান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি কামরুজ্জামান, মতলব দক্ষিণ উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি শ্যামল চন্দ্র দাস, মতলব উত্তর উপজেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান ডলার ও হাজীগঞ্জ প্রেসক্লাবের হাবিবুর রহমান জীবন।

প্রথম জানাজায় ইমামতি করেন জেলা ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের কোষাধ্যক্ষ মাওঃ আব্দুর রহমান গাজী। প্রথম জানাজায় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ছাড়াও জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং মরহুমের আত্মীয়-স্বজনগণ উপস্থিত ছিলেন।

উপস্থিতিদের মাঝে উল্লেখযোগ্যরা হলেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য শংকর চন্দ্র দে, চাঁদপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সহ-সভাপতি তমাল কুমার ঘোষ, প্রেসক্লাবের আজীবন সদস্য গোপাল সাহা, প্রেসক্লাব সদস্য ফনি ভূষণ চন্দ, প্রেসক্লাবের কার্যকরী সদস্য আলহাজ্ব ওমর পাটওয়ারী প্রমুখ।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন