মুক্তিযোদ্ধা আ. মালেক ভূঁইয়া সৎ ও আদর্শবান মানুষ ছিলেন : অ্যাড. জুয়েল

নিজস্ব প্রতিবেদক :
মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সাবেক সদস্য ও জেলা কৃষক লীগের সাবেক আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. মালেক ভূঁইয়ার ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। বুধবার বাদ আছর শহরের মধ্য ইচুলী পাকা জামে মসজিদে আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া করা হয়েছে।

মিলাদ ও দোয়ার মাহফিলে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় মরহুমের বড় ছেলে ও জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুলের পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র অ্যাড. জিল্লুর রহমান জুয়েল।

এ সময় তিনি বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. মালেক ভূঁইয়া একজন সৎ ও আদর্শবান মানুষ ছিলেন। আজকের এই দিনে আপনাদের উপস্থিতি বলে দিচ্ছে তিনি আপনাদের কত আপন ছিলেন। আমি তার রুহের মাগফেরাত কামনা করছি। আপনারা সবাই তার জন্য দোয়া করবেন মহান আল্লাহ যেন তাকে জান্নাতবাসী করেন, আমিন।

বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ তাফাজ্জল হোসেন (এসডু) পাটওয়ারী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলী এরশাদ মিয়াজী, সাবেক শ্রম বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া ও পৌরসভার ১১নং ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত কাউন্সিলর ইকবাল হোসেন বাবু পাটওয়ারী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. মুজিবুর রহমান ভূঁইয়া, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও পৌর কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলী মাঝি, জেলা শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহবুবুর রহমান, পৌরসভার নবনির্বাচিত কাউন্সিলার ২নং ওয়ার্ডের আব্দুল মালেক শেখ, ৪নং ওয়ার্ডের মামুনুর রহমান দোলন, ৭নং ওয়ার্ডের শফিকুল ইসলাম, ৮নং ওয়ার্ডের অ্যাড. হেলাল হোসাঈন, ১০নং ওয়ার্ডের ইউনুস শোয়েব, জেলা যুবলীগের সদস্য নাজমুল হোসেন পাটওয়ারী, মাইনুল হায়দার চৌধুরী, গাজী আব্দুল গণি, সদর উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হোসেন ভ‚ইয়া, সদর উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক অ্যাড. হুময়ুন কবির, যুগ্ম আহ্বায়ক শিমুল হাসান সামনু, পৌর যুবলীগের সদস্য কামরুল হাসান টিটু ভ‚ইয়া, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম রবিন পাটওয়ারী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আতাউর রহমান পারভেজসহ-আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ও সুধীমহল উপস্থিত ছিলেন।

পরে দোয়া ও মোনাজাতশেষে উপস্থিত সকলের মাঝে তবারক বিতরণ করা হয়। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মিজানুর রহমান। মিলাদ পরিচালনা করেন হযরত শাহ সুফি শাহানশাহ (রহঃ) জামে মসজিদের ইমাম আতিকুল ইসলাম।

মরহুমের বড় ছেলে জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল জানান, আমার আব্বা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। তাই তিনি সবসময় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসীদের সাথে নিয়ে চলতেন। আব্বার অনুপ্রেরণায় আমরা ভাই ও বোনেরা মুক্তিযুদ্ধের আদর্শকে লালন করে রাজনীতির বিভিন্ন ধাপ পেরুচ্ছি। আমি আমার আব্বার বিদেহী আত্মার জন্য সকলের নিকট দোয়া কামনা করছি।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন